বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:৪৩ পূর্বাহ্ন
Title :
কুড়িগ্রামে বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টির জন্য সালাতুল ইসতিসকার নামাজ ও দোয়া অনুষ্ঠিত>৭১বার্তা বেরোবির একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস্ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান উমর ফারুক> ৭১বার্তা কুড়িগ্রামে আবিষ্কৃত টেলিস্কোপ দেখতে মানুষের ভিড়> ৭১বার্তা লিবিয়াতে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত> ৭১বার্তা কুড়িগ্রামে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু> ৭১বার্তা ফুলবাড়ীতে অবহিতকরণ কর্মশালা> ৭১বার্তা চিলমারীর ব্রহ্মপুত্রের তীরে অষ্টমী স্নানে লাখো হিন্দু সম্প্রদায়ের ঢল > ৭১বার্তা বাস-পিকআপে সংঘর্ষে ফরিদপুরে ১১জন নিহত> ৭১বার্তা লিবিয়াতে বৈশাখী উৎসব পালিত > ৭১বার্তা লঞ্চের ধাক্কায় সদরঘাটে পাঁচ জনের মৃত্যু > ৭১বার্তা

কারও চোখ রাঙানিতে নির্বাচন থেমে থাকবে না – ৭১বার্তা

মোস্তাফিজার বাবলু
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১৫৭ বার পঠিত

বিএনপি-জামায়াত ২০১৪ ও ২০১৮ সালে নির্বাচন ঠেকাতে পারেনি, এবারও পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নির্বাচন হবে এবং যথাসময়েই হবে জানিয়ে সরকারপ্রধান বলেন, কারও চোখ রাঙানিতে নির্বাচন থেমে থাকবে না। জনগণ তাদের সঙ্গে আছে, বিএনপির সঙ্গে নেই বলেও দাবি করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর) বিকেলে সরকারি বাসভবন গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ‘গ্লোবাল গেটওয়ে ফোরাম’-এ যোগদান বিষয়ে জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যথাসময়ে হবে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, কে চোখ রাঙালো, কে চোখ বাঁকালো তাতে কিছু যায় আসে না। নির্বাচন হবেই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন হবেই। কোনো সহিংসতা করে লাভ হবে না। ২০১৪ সালে পারে নাই, ২০১৮ সালেও পারে নাই। এবারও পারবে না।

বিএনপি এবার যে সহিংসতা করছে তাতে এবার আর ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানান সরকারপ্রধান। নাশকতাকারীদের বিচার দ্রুততার সঙ্গে করার ওপরও জোর দেন তিনি।বিরোধী দলের সঙ্গে সংলাপের প্রস্তাব নাকচ করে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কার সঙ্গে সংলাপ? কে বিরোধী দল? বিরোধী দল হলো তারাই যাদের পার্লামেন্ট সিট আছে। বিরোধী দল বলতে যাদের নির্বাচিত প্রতিনিধি আছে সংসদে তারাই। এর বাইরে কিছু হয় না। যুক্তরাষ্ট্রেও হয় না।শেখ হাসিনা বলেন, এই যে মানুষগুলো হত্যা হলো, তাকে (পিটার হাস) প্রশ্ন করলো না কেন। হিরো আলমকে নিয়ে কথা বলে। খুনিদের সঙ্গে আবার কীসের বৈঠক, যারা এভাবে মানুষকে হত্যা করতে পারল তাদের সঙ্গে কীসের ডায়লগ। সে (পিটার হাস) বসে ডিনার খাক। বালাদেশি মানুষ বিএনপি-জামায়াতকে ঘৃণা করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গণতন্ত্র থাকলে, নির্বাচিত সরকার থাকলে যে উন্নতি হয় তা আপনারা বিশ্বাস করেন। বিএনপির নাশকতার ব্যাপারে দেশবাসীকে সজাগ থাকার আহ্বান জানান তিনি।

২৮ অক্টোবরের সহিংসতায় বিএনপিকে দায়ী করে শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট যে সন্ত্রাসী সেটা আবারও প্রমাণ করল। কানাডার কোট সেটা বারবার বলেছে। মাঝে কিছুটা রাজনৈতিক কর্মসূচি তারা পালন করেছে। আমাদের সরকারও তাদের কোনো বাধা দেয়নি। এতে তারা ধীরে ধীরে আস্থা অর্জন শুরু করেছিল। তবে ২৮ তারিখ যে ঘটনা, যেভাবে পুলিশকে কোপালো, সাংবাদিকদের মারল, এতে ধিক্কার ছাড়া আর কিছুই তাদের জুটবে না।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ফিলিস্তিনে যেমন ইসরায়েলি বাহিনী হাসপাতালে হামলা চালিয়েছে, বিএনপিও সেভাবে হাসপাতালে হামলা চালিয়েছে। ইসরায়েলি হামলার সঙ্গে তাদের কোনো তফাৎ দেখছি না। আমরা এই সন্ত্রাসী ঘটনার নিন্দা জানাই। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করে তারা নিজেরাই পালালো।

বিএনপির অবরোধের সমালোচনা করে সরকারপ্রধান বলেন, কিসের অবরোধ, কার জন্য অবরোধ। যখন দেশের উন্নয়ন হচ্ছে, সারা বিশ্ব প্রশংসা করছে, তাদের কাজটাই হলো উন্নয়ন নস্যাৎ করা। সূত্র : ঢাকা মেইল।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো কিছু জনপ্রিয় সংবাদ
© All rights reserved © 2023 71barta.com
Design & Development BY Hostitbd.Com