বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৯:২২ পূর্বাহ্ন
Title :
প্রত্যেকটি নাগরিক যেন রাষ্ট্রের কাছে ন্যায়বিচার পায়, বললেন প্রধান বিচারপতি> ৭১বার্তা ফুলবাড়ীতে আমনধান সংগ্রহে কৃষক নির্বাচন লটারী অনুষ্ঠিত> ৭১বার্তা রংপুরে ৩ জঙ্গির পৃথক মেয়াদে সাজা> ৭১বার্তা ২১ মে কুড়িগ্রাম জেলার ৩টি উপজেলা পরিষদের নির্বাচন> ৭১বার্তা বেরোবিতে স্কলারশীপ সাপোর্ট অফিসের উদ্বোধন>৭১বার্তা বাংলাদেশ ব্যাংকে সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ গণবিরোধী, বললেন জিএম কাদের> ৭১বার্তা ভুল রাজনীতি দেশ পিছিয়ে দেয়, বললেন ডা. দীপু মনি> ৭১বার্তা উলিপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে সাজু> ৭১বার্তা ভোট না দিলে রড গরম করে সোজা করা হবে> ৭১বার্তা পীরগাছায় পেনশন স্কিম বাস্তবায়নে জনপ্রতিনিধিদের মতবিনিময়> ৭১বার্তা

ঘগোয় বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ১৩ শিক্ষকের ১৪ পরীক্ষার্থী,তবুও শতভাগ ফেল> ৭১বার্তা

মোশাররফ হোসেন বুলু, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৩ মে, ২০২৪
  • ৫৩ বার পঠিত

 

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ঘগোয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় কেউ পাশ করেনি। ১৩ জন শিক্ষকের এ বিদ্যালয়টি থেকে ১৪ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৪ সালে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তারাপুর ইউনিয়নের ঘগোয়া গ্রামে ঘগোয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৯৯ সাল থেকে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। প্রতিষ্ঠার ১০ বছর পর ২০০৪ সালে বিদ্যালয়টি এমপিওভুক্ত হয়।

বিদ্যালয়টিতে বর্তমানে প্রধান শিক্ষকসহ ১৩ জন শিক্ষক ও তিনজন কর্মচারী রয়েছেন। গত বছর এ বিদ্যালয় থেকে ১৬ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে ১৩ জন পাশ করেছিল।

স্থানীয়রা বলেন, বিদ্যালয়টি প্রতিদিন খোলা থাকলেও শিক্ষার্থীদের স্কুলে আসার প্রতি তেমন একটা আগ্রহ নেই।

এছাড়া শিক্ষক-কর্মচারীরা গল্প-গুজব করে সময় কাটিয়ে বাড়িতে চলে যান। এমনকি বিদ্যালয়ের গণিত বিষয়ের শিক্ষক নিয়মিত বিদ্যালয় না আসার অভিযোগ করেন স্থানীয়রা। তাছাড়া কমিটি গঠন নিয়ে প্রধান শিক্ষক মামলা মোকদ্দমায় জড়িয়েছেন।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক এক অভিভাবক বলেন, ১৬ জন শিক্ষক কর্মচারী স্কুলে পরীক্ষার্থী ছিল মাত্র ১৪ জন। সবাই ফেল করার বিষয়টি দুঃখজনক। এ বিদ্যালয়ে শিক্ষকরা প্রতিদিন আসে কিনা, ঠিকমতো ক্লাস নেয় কিনা, সেটি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দেখা প্রয়োজন।

এ বিষয়ে জানতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হাকিম সরকার বলেন, এবার এসএসসি পরিক্ষায় ১৪ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছিল। সবাই পাশ করার মতো মেধাবী ছিল। কেন তাদের পরিক্ষার ফলাফল ফেল আসলো তা আমরা বুঝতে পারছি না। আমরা শিক্ষা বোর্ডে এ বিষয়ে চ্যালেঞ্জ করবো।

সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম বলেন, উপজেলার ঘগোয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৪ জন পরীক্ষা দিয়ে কেউ পাস করেনি। বিষয়টি দুঃখজনক। ইতোমধ্যে ওই বিদ্যালয় পরিদর্শন করেছি। শিক্ষার্থীরা যে যে বিষয়ে ফেল করেছে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের কারণ দর্শানোর জন্য প্রধান শিক্ষককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো কিছু জনপ্রিয় সংবাদ
© All rights reserved © 2023 71barta.com
Design & Development BY Hostitbd.Com