1. admin@71barta.com : 71barta.com :
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০১:৫৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
সন্ত্রাসবাদ-জঙ্গিবাদ নিরসনে ‘শূন্য সহনশীলতার নীতি’ গ্রহণ করেছি: প্রধানমন্ত্রী তালায় বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত করার অভিযোগে যুবক গ্রেফতার কে দাশ মেয়াদোত্তীর্ণ ইউপি চেয়ারম্যানরা তিন মাস বাড়তি সময় পেলেন প্র’কাশ করা হলো বুবলীর কন্যা সন্তানের বাবার নাম কলারোয়ায় আবার ও করোনা রোগী সনাক্ত খুলনার রূপসায় গভীর রাতে প্রকাশ্য ছিনতাই চিলমারী প্রেস ক্লাবের কমিটি গঠন সাবু সভাপতি, মমিনুল সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত ঠাকুরগাঁওয়ে জামাইয়ের রহস্যজনক মৃত্যু খুলনার যেসব এলাকায় শুক্রবার থেকে তিনদিন বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে ৩শ ৩৯ কোটি ৫৪ লাখ ৬৪ হাজার টাকা ব্যয়ে খুলনার ১৮ মাইল হতে কয়রা পর্যন্ত সড়কের প্রশস্ত ও বাঁক সরলী করন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন-এমপি-বাবু

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় দুই ছেলে-মেয়ে সহ মায়ের মরদেহ উদ্ধার;

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১ এপ্রিল, ২০২১
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধি:

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার লাঙ্গলঝাড়া এলাকায় বসতঘর থেকে মা ও দুই শিশুসন্তানের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মরদেহটি তিনটি উদ্ধার করা হয়।

ঘরের মধ্যে মা মাহমুদা খাতুনের (৩০) ঝুলন্ত মরদেহ, ছেলে মাহফুজ (৯) ও মোহনা খাতুনের (৪) ঘরের মেঝে থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মাহমুদা খাতুনের স্বামী শিমুল পেশায় একজন ট্রাকচালক। তিনি বাগেরহাট জেলায় কাজ করেন।

স্থানীয় ব্যক্তিরা জানান, কয়েক দিন আগে প্রতিবেশী লাল্টুর ছেলে হৃদয় (১২) শিশু মোহনা খাতুনকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। পরে শিশুটি তার মাকে এ ব্যপারে জানায়। এতে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য সাফিজুল ইসলাম শাফিকে বিচারের জন্য বলেন মোহনার মা মাহমুদা। পরে ইউপি সদস্য তাকে ইউনিয়ন পরিষদের ভোট গ্রহণের পর বিচার করার আশ্বাস দেন।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকাল আটটার দিকে লাঙ্গলঝাড়া বাজার থেকে নাশতা কিনে বাড়িতে আনেন মাহমুদা। এরপর খাওয়াদাওয়া করেন। পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঘরের মধ্যে তাদের তিনজনের মরদেহ দেখে স্থানীয়রা থানা পুলিশকে খবর দেন।

এ বিষয়ে শিমুল হোসেনের বাবা আব্দার আলী ঢাকা পোস্টকে বলেন, বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি মামলার পরামর্শ দেন। আমরা গরিব মানুষ। এখন মামলার খরচ চালাব কীভাবে? সকালে আমি দিনমজুরের কাজে গিয়েছিলাম। এসে দেখছি তিনজনই মারা গেছে।

কলারোয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর খায়রুল কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে রয়েছি। মাহমুদা বেগমের ঝুলন্ত ও শিশু দুটির মরদেহ মেঝেতে পড়ে থাকা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। কী কারণে এমন ঘটনা ঘটেছে বা এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা, সে ব্যাপারে এখনো কিছু জানা যায়নি। তবে তদন্ত চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায় : মাল্টিকেয়ার

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত