1. admin@71barta.com : 71barta.com :
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০২:৪৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
সন্ত্রাসবাদ-জঙ্গিবাদ নিরসনে ‘শূন্য সহনশীলতার নীতি’ গ্রহণ করেছি: প্রধানমন্ত্রী তালায় বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত করার অভিযোগে যুবক গ্রেফতার কে দাশ মেয়াদোত্তীর্ণ ইউপি চেয়ারম্যানরা তিন মাস বাড়তি সময় পেলেন প্র’কাশ করা হলো বুবলীর কন্যা সন্তানের বাবার নাম কলারোয়ায় আবার ও করোনা রোগী সনাক্ত খুলনার রূপসায় গভীর রাতে প্রকাশ্য ছিনতাই চিলমারী প্রেস ক্লাবের কমিটি গঠন সাবু সভাপতি, মমিনুল সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত ঠাকুরগাঁওয়ে জামাইয়ের রহস্যজনক মৃত্যু খুলনার যেসব এলাকায় শুক্রবার থেকে তিনদিন বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে ৩শ ৩৯ কোটি ৫৪ লাখ ৬৪ হাজার টাকা ব্যয়ে খুলনার ১৮ মাইল হতে কয়রা পর্যন্ত সড়কের প্রশস্ত ও বাঁক সরলী করন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন-এমপি-বাবু

সাংবাদিকরা প্রেমিক হিসেবে অন্য ব্যক্তিদের থেকে কয়েক’শ মাইল এগিয়ে

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১
  • ১২ বার পড়া হয়েছে

মেহেদী হাসান কবির;

প্রেম চিন্তাভাবনা করে হয় না, হঠাত্‍ করে হয় – কথাটা কি পুরোপুরি সত্যি? বোধহয় না! ভেবে দেখুন তো, দুম করে যখন কাউকে ভালো লেগে যায়, তখন তো তার বিশেষ কোনো বিষয় দেখেই ভালো লাগার ব্যাপারটা ঘটে, তাই না? সাংবাদিকদের সঙ্গে নাকি প্রেম করা বেশ কঠিন। এই পেশার লোকদের পকেট নাকি সব সময়ই খালি। আর তারা নাকি সব সময়ই বড্ড বেশি কাজ নিয়েই মেতে থাকে। কথাগুলো নেহাত মিথ্যা নয়। কিন্তু তাই বলে তাদের সঙ্গে প্রেম করা কঠিন- এমন কথা পুরোটাই আজগুবি।

আসলে সাংবাদিকদের সঙ্গে প্রেম করা বেশ লাভজনক। সাংবাদিকরা প্রেমিক বা প্রেমিকা হিসেবে অন্য যেকোনো পেশার পার্টনারের থেকে কয়েকশ মাইল এগিয়ে। প্রকৃত পক্ষে প্রেম করার জন্য কেনো সাংবাদিকরাই সেরা!
জেনে নিন এর কারণ:
* পেশার খাতিরে সাংবাদিকরা এমনিতেই চরকার মতো ঘুরতে থাকেন। তাই শহরের অলিগলিতে কোথায় কী আছে- সবই তাদের নখদর্পণে। আর এ কারণেই তাদের সঙ্গে প্রেম মানে জীবনে আনন্দের আর ফুর্তির প্রাচুর্য্য।

* সাংবাদিকরা সচরাচর এতোটাই কম বেতন পান যে টাকা বিষয়ে তাদের মোহ ব্যাপারটা তৈরি হয় না। ভেবে দেখুন, টাকার প্রতি বিশেষ আকর্ষণ নেই এমন প্রেমিক বা প্রেমিকা কি সহজে মেলে?
* পেশার জন্য সাংবাদিকরা সর্বদাই ব্যস্ত। তাদের সঙ্গে প্রেম করলে আপনার ব্যক্তিগত সময়ের বিশেষ অভাব হবে না। কারণ আপনার নিজস্ব সময়ে নাক গলানোর সময়টাই যে তাদের বিশেষ নেই।
* সাংবাদিকরা অনেকটা কাঁঠালি কলার মতো। চাই বা না চাই কয়েক গুচ্ছ কাজ তাদের শিখে রাখতেই হয়, যাকে বলে ‘বাই ডি ফল্ট মাল্টিটাস্কিং’। এক সঙ্গে অনেক কাজ তাদের অভ্যাস হয়ে যায়। বাড়িতে এমন একজন মাল্টিটাস্কিং পার্টনার কে না চায় বলুন?
* সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলুন। দেখবেন, জানা থাকুক বা না থাকুক আলপিন থেকে আলাস্কা, সব কিছু নিয়েই তারা নাতি দীর্ঘ বক্তব্য দিতে পারেন। ফলে যখন কোনো কাজ থাকবে না, একঘেয়ে লাগবে। তাদের সঙ্গে আরামে বকবক করতে পারেন।
* খবর সন্ধানের তাগিদে এর, ওর, তার থেকে এতো এটা, ওটা, সেটা শুনতে হয়, সাংবাদিকরা আপসেই ভাল শ্রোতা হয়ে ওঠেন। প্রেমিক বা প্রেমিকা যদি ভাল শ্রোতা হল, তার থেকে ভাল আর কী-ই বা হতে পারে?
* পেশার খাতিরেই বিশ্বাসী হয়ে থাকেন সাংবাদিকরা। সংবাদের জন্য অনেক লোকজনের কাছে যেতে হয় তাদের। সংবাদ উৎসের পরিচয় গোপন রাখতে হয়। আর এ কারণেই বিশ্বাসী আর সহায়তাপ্রবণ হয় সাংবাদিকরা। জীবনে এমন একজন মানুষ কে না চায়?
* এমনিতেই তাদের এমন গাধার খাটুনি খাটতে হয়।সাংবাদিকরা ইচ্ছা-অনিচ্ছার উর্ধ্বে গিয়ে বাই ডি ফল্ট কঠোর পরিশ্রমী হয়ে ওঠেন। সঙ্গী বা সঙ্গিনী পরিশ্রমী হওয়া যে কারো পক্ষেই অত্যন্ত সুখকর।
* সাধারণত সাংবাদিকরা বেশ সৃজনশীল হন। নিজের পেশা ছাড়াও আরো অনেক কিছুতেই পারদর্শী হন। পার্টনার যদি সৃজনশীল হন, তা হলে গর্বে বুকের ছাতি ইঞ্চি খানেক বাড়ে বৈকি!
* সারাটা দিন এর ওর সঙ্গে খেজুরে ভদ্রতা করতে গিয়ে এমন হাসিটা দিতে হয়, সেই হাসিটাই সাংবাদিকদের কেমন অভ্যাস হয়ে যায়। হাসি খুশি প্রেমিক বা প্রেমিকা কে না চায়?

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায় : মাল্টিকেয়ার

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত